Surah Qalam (68) The Pen

Surah Qalam

Assalamu walaikum brothers and sisters, if you want to know about Surah Qalam or you want to know the Surah Qalam in English or Surah Qalam in Bangla then you are in the right place. Here we learn about the  meaning of  Surah Qalam in three different languages Insallah.

Surah Qalam


Surah Qalam in Arabic

بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ
1. ن ۚ وَالْقَلَمِ وَمَا يَسْطُرُونَ
2. مَا أَنْتَ بِنِعْمَةِ رَبِّكَ بِمَجْنُونٍ
3. وَإِنَّ لَكَ لَأَجْرًا غَيْرَ مَمْنُونٍ
4. وَإِنَّكَ لَعَلَىٰ خُلُقٍ عَظِيمٍ
5. فَسَتُبْصِرُ وَيُبْصِرُونَ
6. بِأَيْيِكُمُ الْمَفْتُونُ
7. إِنَّ رَبَّكَ هُوَ أَعْلَمُ بِمَنْ ضَلَّ عَنْ سَبِيلِهِ وَهُوَ أَعْلَمُ بِالْمُهْتَدِينَ
8. فَلَا تُطِعِ الْمُكَذِّبِينَ
9. وَدُّوا لَوْ تُدْهِنُ فَيُدْهِنُونَ
10. وَلَا تُطِعْ كُلَّ حَلَّافٍ مَهِينٍ
11. هَمَّازٍ مَشَّاءٍ بِنَمِيمٍ
12. مَنَّاعٍ لِلْخَيْرِ مُعْتَدٍ أَثِيمٍ
13. عُتُلٍّ بَعْدَ ذَٰلِكَ زَنِيمٍ
14. أَنْ كَانَ ذَا مَالٍ وَبَنِينَ
15. إِذَا تُتْلَىٰ عَلَيْهِ آيَاتُنَا قَالَ أَسَاطِيرُ الْأَوَّلِينَ
16. سَنَسِمُهُ عَلَى الْخُرْطُومِ
17. إِنَّا بَلَوْنَاهُمْ كَمَا بَلَوْنَا أَصْحَابَ الْجَنَّةِ إِذْ أَقْسَمُوا لَيَصْرِمُنَّهَا مُصْبِحِينَ
18. وَلَا يَسْتَثْنُونَ
19. فَطَافَ عَلَيْهَا طَائِفٌ مِنْ رَبِّكَ وَهُمْ نَائِمُونَ
20. فَأَصْبَحَتْ كَالصَّرِيمِ
21. فَتَنَادَوْا مُصْبِحِينَ
22. أَنِ اغْدُوا عَلَىٰ حَرْثِكُمْ إِنْ كُنْتُمْ صَارِمِينَ
23. فَانْطَلَقُوا وَهُمْ يَتَخَافَتُونَ
24. أَنْ لَا يَدْخُلَنَّهَا الْيَوْمَ عَلَيْكُمْ مِسْكِينٌ
25. وَغَدَوْا عَلَىٰ حَرْدٍ قَادِرِينَ
26. فَلَمَّا رَأَوْهَا قَالُوا إِنَّا لَضَالُّونَ
27. بَلْ نَحْنُ مَحْرُومُونَ
28. قَالَ أَوْسَطُهُمْ أَلَمْ أَقُلْ لَكُمْ لَوْلَا تُسَبِّحُونَ
29. قَالُوا سُبْحَانَ رَبِّنَا إِنَّا كُنَّا ظَالِمِينَ
30. فَأَقْبَلَ بَعْضُهُمْ عَلَىٰ بَعْضٍ يَتَلَاوَمُونَ
31. قَالُوا يَا وَيْلَنَا إِنَّا كُنَّا طَاغِينَ
32. عَسَىٰ رَبُّنَا أَنْ يُبْدِلَنَا خَيْرًا مِنْهَا إِنَّا إِلَىٰ رَبِّنَا رَاغِبُونَ
33. كَذَٰلِكَ الْعَذَابُ ۖ وَلَعَذَابُ الْآخِرَةِ أَكْبَرُ ۚ لَوْ كَانُوا يَعْلَمُونَ
34. إِنَّ لِلْمُتَّقِينَ عِنْدَ رَبِّهِمْ جَنَّاتِ النَّعِيمِ
35. أَفَنَجْعَلُ الْمُسْلِمِينَ كَالْمُجْرِمِينَ
36. مَا لَكُمْ كَيْفَ تَحْكُمُونَ
37. أَمْ لَكُمْ كِتَابٌ فِيهِ تَدْرُسُونَ
38. إِنَّ لَكُمْ فِيهِ لَمَا تَخَيَّرُونَ
39. أَمْ لَكُمْ أَيْمَانٌ عَلَيْنَا بَالِغَةٌ إِلَىٰ يَوْمِ الْقِيَامَةِ ۙ إِنَّ لَكُمْ لَمَا تَحْكُمُونَ
40. سَلْهُمْ أَيُّهُمْ بِذَٰلِكَ زَعِيمٌ
41. أَمْ لَهُمْ شُرَكَاءُ فَلْيَأْتُوا بِشُرَكَائِهِمْ إِنْ كَانُوا صَادِقِينَ
42. يَوْمَ يُكْشَفُ عَنْ سَاقٍ وَيُدْعَوْنَ إِلَى السُّجُودِ فَلَا يَسْتَطِيعُونَ
43. خَاشِعَةً أَبْصَارُهُمْ تَرْهَقُهُمْ ذِلَّةٌ ۖ وَقَدْ كَانُوا يُدْعَوْنَ إِلَى السُّجُودِ وَهُمْ سَالِمُونَ
44. فَذَرْنِي وَمَنْ يُكَذِّبُ بِهَٰذَا الْحَدِيثِ ۖ سَنَسْتَدْرِجُهُمْ مِنْ حَيْثُ لَا يَعْلَمُونَ
45. وَأُمْلِي لَهُمْ ۚ إِنَّ كَيْدِي مَتِينٌ
46. أَمْ تَسْأَلُهُمْ أَجْرًا فَهُمْ مِنْ مَغْرَمٍ مُثْقَلُونَ
47. أَمْ عِنْدَهُمُ الْغَيْبُ فَهُمْ يَكْتُبُونَ
48. فَاصْبِرْ لِحُكْمِ رَبِّكَ وَلَا تَكُنْ كَصَاحِبِ الْحُوتِ إِذْ نَادَىٰ وَهُوَ مَكْظُومٌ
49. لَوْلَا أَنْ تَدَارَكَهُ نِعْمَةٌ مِنْ رَبِّهِ لَنُبِذَ بِالْعَرَاءِ وَهُوَ مَذْمُومٌ
50. فَاجْتَبَاهُ رَبُّهُ فَجَعَلَهُ مِنَ الصَّالِحِينَ
51. وَإِنْ يَكَادُ الَّذِينَ كَفَرُوا لَيُزْلِقُونَكَ بِأَبْصَارِهِمْ لَمَّا سَمِعُوا الذِّكْرَ وَيَقُولُونَ إِنَّهُ لَمَجْنُونٌ
52. وَمَا هُوَ إِلَّا ذِكْرٌ لِلْعَالَمِينَ

Surah Qalam in English

Makki Surah ; Verse: 52;  Section: 2

In the name of Allah, Most Gracious, Most Merciful.

1.    Nun. By the Pen and the (Record) which (men) write,-

2.    You are not, by the Grace of thy Lord, mad or possessed.

3.    Nay, verily for you is a Reward unfailing:

4.    And you (stands) on an exalted standard of character.

5.    Soon wilt you see, and they will see,

6.    Which of you is afflicted with madness.

7.    Verily it is thy Lord that knows best, which (among men) hath strayed from His Path: and He knows best those who receive (true) Guidance.

8.    So hearken not to those who deny (the Truth).

9.    Their desire is that you should be pliant: so would they be pliant.

10. Heed not the type of despicable men,- ready with oaths,

11. A slanderer, going about with calumnies,

12. (Habitually) hindering (all) good, transgressing beyond bounds, deep in sin,

13. Violent (and cruel),- with all that, base-born,-

14. Because he possesses wealth and (numerous) sons.

15. When to him are rehearsed Our Signs, "Tales of the ancients", he cries!

16. Soon shall We brand (the beast) on the snout!

17. Verily We have tried them as We tried the People of the Garden, when they resolved to gather the fruits of the (garden) in the morning.

18. But made no reservation, ("If it be Allah´s Will").

19. Then there came on the (garden) a visitation from thy Lord, (which swept away) all around, while they were asleep.

20. So the (garden) became, by the morning, like a dark and desolate spot, (whose fruit had been gathered).

21. As the morning broke, they called out, one to another,-

22. "Go you to your tilth (betimes) in the morning, if you would gather the fruits."

23. So they departed, conversing in secret low tones, (saying)-

24. "Let not a single indigent person break in upon you into the (garden) this day."

25. And they opened the morning, strong in an (unjust) resolve.

26. But when they saw the (garden), they said: "We have surely lost our way:

27. "Indeed we are shut out (of the fruits of our labor)!"

28. Said one of them, more just (than the rest): "Did I not say to you, ´Why not glorify (Allah)?´"

29. They said: "Glory to our Lord! Verily we have been doing wrong!"

30. Then they turned, one against another, in reproach.

31. They said: "Alas for us! We have indeed transgressed!

32. "It may be that our Lord will give us in exchange a better (garden) than this: for we do turn to Him (in repentance)!"

33. Such is the Punishment (in this life); but greater is the Punishment in the Hereafter,- if only they knew!

34. Verily, for the Righteous, are Gardens of Delight, in the Presence of their Lord.

35. Shall We then treat the People of Faith like the People of Sin?

36. What is the matter with you? How judge you?

37. Or have you a book through which you learn

38. That you shall have, through it whatever you choose?

39. Or have you Covenants with Us to oath, reaching to the Day of Judgment, (providing) that you shall have whatever you shall demand?

40. Ask you of them, which of them will stand surety for that!

41. Or have they some "Partners" (in Allahhead)? Then let them produce their "partners", if they are truthful!

42. The Day that the shin shall be laid bare, and they shall be summoned to bow in adoration, but they shall not be able,

43. Their eyes will be cast down,- ignominy will cover them; seeing that they had been summoned aforetime to bow in adoration, while they were whole, (and had refused).

44. Then leave Me alone with such as reject this Message: by degrees shall We punish them from directions they perceive not.

45. A (long) respite will I grant them: truly powerful is My Plan.

46. Or is it that you dost ask them for a reward, so that they are burdened with a load of debt?

47. Or that the Unseen is in their hands, so that they can write it down?

48. So wait with patience for the Command of thy Lord, and be not like the Companion of the Fish,- when he cried out in agony.

49. Had not Grace from his Lord reached him, he would indeed have been cast off on the naked shore, in disgrace.

50. Thus did his Lord choose him and make him of the Company of the Righteous.

51. And the Unbelievers would almost trip you up with their eyes when they hear the Message; and they say: "Surely he is possessed!"

52. But it is nothing less than a Message to all the worlds.

 

<<Previous Surah>>      << Home Page>>        <<Next Surah>>

Surah Qalam in English

মাক্কী সূরাআয়াত :52  ; রুকু :2

পরম করুণাময় অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে

রুকূ

. নূন, কসম (লেখার মাধ্যম) কলমের, (আরাে কসম কলম দিয়ে) তারা যা লিখে রাখছে তার,

. আপনার প্রভুর (অসীম) দয়ায় আপনি - পাগল নন,

. তােমার জন্যে নিশ্চয়ই এমন এক পুরস্কার রয়েছে যা কোনােদিন শেষ হবে না,

. নিঃসন্দেহে আপনি মহান চরিত্রের ওপর (প্রতিষ্ঠিত) রয়েছেন 

. (সেদিন খুব দূরে নয় যখন) আপনি (আপনাকে যারা পাগল বলে) তারা সবাই দেখতে পাবে যে

. তােমাদের মধ্যে (আসলে) কে বিকারগ্রস্ত (পাগল) ছিলাে

. আপনার প্রভু ভালাে করেই জানেন (তােমাদের মধ্যে) কোন ব্যক্তি পথভ্রষ্ট হয়ে গেছে, (আবার) যারা সঠিক পথের ওপর রয়েছে আল্লাহ পাক তাদের সম্পর্কেও সম্যক জ্ঞাত আছেন

. অতএব, আপনি মিথ্যা প্রতিপন্নকারীদের অনুসরণ করবেন না

. তারা চায় যে, আপনি (তাদের কিছু) গ্রহণ করুন! অতঃপর তারাও (আপনার কিছু) গ্রহণ করবে। 

১০. যারা বেশী বেশী কসম করবে (এবং পদে পদে) লাঞ্ছিত হয়, এমন লােকদের আপনি কখনাে অনুসরণ করবেন না

১১. যে (বেহুদা) গালমন্দ করে, (খামাখা মানুষদের) অভিশাপ দেয় এবং চোগলখােরী করে বেড়ায়,

১২. যে ভালাে কাজে বাধাসৃষ্টি করে, (অন্যায়ভাবে) সীমালঙ্ঘন করে, (সর্বোপরি ) যে পাপিষ্ঠ

১৩. যে কঠোর স্বভাবের অধিকারী, এরপর যে (জন্ম পরিচয়ের দিক থেকেও) জারজ

১৪. যেহেতু সে (বিপুল) ধনরাশি (অনেকগুলাে) সন্তান সন্ততির অধিকারী

১৫. লােককে যখন আমারআয়াতসমূহ' পড়ে শােনানাে হয় তখন সেবলে, এগুলাে তােহচ্ছে আগের দিনের গল্প কাহিনী মাত্র!

১৬. ( অহঙ্কারী ব্যক্তিটিকে আপনি জানিয়ে রাখুন,) শীঘ্রই আমি তার ঘাড়ে দাগ দিয়ে তাকে চিহ্নিত করে দেবাে

১৭. নিশ্চয়ই আমি (জনপদের) মানুষদের পরীক্ষা করেছি, যেমনি (অতীতে) আমি একটি ফলের বাগানের কতিপয় মালিককে পরীক্ষা করেছিলাম, (সে পরীক্ষাটা ছিলাে, এমন যে, একদিন) তারা সবাই (একযােগে) কসম করে বলেছিলাে, নিশ্চয়ই তারা সকাল বেলায় গিয়ে (বাগানের) ফল পাড়বে,

১৮. ( সময়) তারা (আল্লাহ পাকের ইচ্ছা অভিপ্রায় সম্বলিত) কিছুই ( সাথে) যােগ করেনি

১৯. তখন (ভাের হতে না হতেই) - আপনার প্রভুর পক্ষ থেকে তার ওপর এক বিপর্যয় এসে পড়লাে, (তখনাে) তারা ছিলাে গভীর ঘুমে

২০. অতঃপর সকাল বেলায় তা মধ্যরাতের কৃষ্ণ বর্ণের মতাে কালাে হয়ে গেলাে। 

২১. (এদিকে) সকাল হতেই তারা (এই বলে) একে অপরকে ডাকাডাকি করতে লাগলাে,

২২. আপনারা যদি সত্যিই ফল আহরণ করতে চান তাহলে সকাল সকাল নিজেদের বাগানের দিকে চলুন

২৩ (অতঃপর) তারা সেদিকে রওয়ানা দিলাে, (পথের মধ্যে) ফিসফিস করে নিজেদের মধ্যে বলাবলি করতে লাগলাে

২৪. কোনাে অবস্থায়ই যেন আজ কোনাে (দুস্থ ) মিসকীন ব্যক্তি তােমাদের ওপর  (টেক্কা) দিয়ে বাগানে এসে প্রবেশ করতে পারে

২৫. তারা সকাল বেলায় সংকল্পবদ্ধ হয়ে এসে উপস্থিত হলাে, (যেন) তারা নিজেরাই (আজ সব ফসল তুলতে) সক্ষম হয়। 

২৬. অতঃপর যখন তারা সে (বাগানের) দিকে তাকিয়ে দেখলাে তখন (আশ্চর্যান্বিত হয়ে) বলতে লাগলাে (একি! এটা তাে আমাদের বাগান নয়), আমরা নিশ্চয়ই পথভ্রষ্ট (হয়ে পড়েছি),

২৭. (না, আসলেই) আমরা (আজ) মাহরূম হয়ে গেছি

২৮. এমুহুর্তে তাদের মধ্যকার একজন ভালাে মানুষ (তাদের) বললাে, আমি কি তােমাদের বলিনি (সব কাজের ব্যাপারে আল্লাহর ওপরই ভরসা করবে), কত ভালাে হতাে যদি তােমরা (আগেই আল্লাহ পাকের মহান নামের) 'তাসবীহ' পড়ে নিতে। 

২৯. (এবার নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে) তারা বললাে, (সত্যিই) আমাদের প্রভু আল্লাহ পাক অনেক মহান, অনেক পবিত্র, (তার নাম না নিয়ে) আমরা (আসলেই) অত্যাচারী হয়ে পড়েছিলাম

৩০. (এভাবে) তারা পরস্পর পরস্পরকে তিরস্কার করে একে অপরের ওপর দোষারােপ করতে লাগলাে

৩১. তারা (আরাে) বললাে, দুর্ভাগ্য আমাদের, (মূলত) আমরা তাে সীমালঙ্ঘনকারী (হয়ে পড়েছি)

৩২. আশা করা যায় আমাদের প্রভু (পার্থিব জিনিসের) বদলে (আখেরাতে) এর চাইতে উৎকৃষ্ট (কিছু আমাদের) দান করবেন, আমরা আমাদের প্রভুর দিকেই ফিরে যাচ্ছি। 

৩৩. শাস্তি এভাবেই (অবতীর্ণ) হয়, আর পরকালের শাস্তি, তা তাে অনেক গুরুতর কত ভালাে হতাে যদি তারা তা জানতে পেতাে!

রুকূ

৩৪. (অপরদিকে) যারা আল্লাহ পাককে ভয় করে চলে তাদের জন্যে নিশ্চয়ই তাদের প্রভুর কাছে (অফুরন্ত) নিয়ামতে ভরপুর বেহেশত রয়েছে। 

৩৫. যারা আমার আনুগত্য করে তাদের সাথে আমি কি অপরাধীদের মতাে (একই ধরনের) ব্যবহার করবাে?

৩৬. কি হলাে তােমাদের (আমার ইনসাফ সম্পর্কে) কি সিদ্ধান্ত তােমরা করছাে

৩৭. তােমাদের কাছে কি এমন কোনাে আসমানী কিতাব আছে যাতে তােমরা ( কথাটা) পড়েছে যে,

৩৮, সেখানে তােমাদের জন্যে সে ধরনের সব কিছুই সরবরাহ করা হবে, যা তােমরা তােমাদের জন্যে পছন্দ করবে

৩৯. না আমি তােমাদের সাথে কোনাে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছি- এমন চুক্তি, যা কিয়ামত পর্যন্ত মানা বাধ্যতামূলক হবে, এর মাধ্যমে তােমরা যা কিছু দাবী করাে তাই তােমরা পাবে,

৪০. আপনি এদের জিজ্ঞেস করুন, তােমাদের মধ্যে কে দায়িত্ব নিতে পারে

৪১. (নিজেরা না পারলে) তাদের কি (অন্য কোনাে) অংশীদার আছে? যদি তারা সত্যবাদী হয়, তাহলে তারা তাদের অংশীদারদের সবাইকে নিয়ে আসুক!

৪২. (মনে করুন,) যেদিন (যাবতীয়) রহস্য উদঘাটিত হয়ে পড়বে, তখন তাদের সিজদাবনত হওয়ার আহ্বান জানানাে হবে, এবং (হতভাগ্য) ব্যক্তি (কিন্ত সেদিন সিজদা করতে) সক্ষম হবে

৪৩. দৃষ্টি তাদের নিম্নগামী হবে, অপমান তাদের ভারাক্রান্ত করে রাখবে; (পৃথিবীতে এমনি করে) যখন তাদের আল্লাহর সম্মুখে সিজদা করতে ডাকা হয়েছিলাে, (তখন) তারা সুস্থ ( সক্ষম) ছিল

৪৪.(হে নবী), অতপর তুমি আমাকে ছেড়ে দাও, যে আমাকে অস্বীকার করে (তার থেকে আমি প্রতিশােধ নেবাে), আমি ধীরে ধীরে এদের (এমন ধ্বংসের) দিকে ঠেলে নিয়ে যাবাে যে, এরা তার কিছুই টের পাবে না

৪৫. আমি এদের অবকাশ দিয়ে রাখি, (অপরাধীদের ধরার) আমার কৌশল অত্যন্ত কার্যকর

৪৬. আপনি কি এদের কাছে কোনাে পারিশ্রমিক দাবী করেছেন যে, এরা তার দণ্ডভারে একেবারে অচল হয়ে পড়েছে

৪৭. না তাদের কাছে অজানা জগতের কোনাে খবর রয়েছে যা তারা লিখে রাখে!

৪৮. (হে নবী!) আপনি (বরং) আপনার প্রভুর কাছ থেকে সিদ্ধান্ত আসার জন্যে ধৈর্যধারণ করুন এবং ( ব্যাপারে) মাছের ঘটনার সাথী (নবী ইউনুস)-এর মতাে হয়াে না যখন সে দুঃখে ভারাক্রান্ত হয়ে আল্লাহ তায়ালাকে ডেকেছিলাে 

৪৯. তখন যদি তার মালিকের অনুগ্রহ তার ওপর না থাকতাে, তাহলে সে উন্মুক্ত সাগরের তীরে পড়ে থাকতাে এবং (এজন্যে) সে নিজেই দায়ী হতাে

৫০. অতঃপর তার প্রভু তাকে বাছাই করলেন এবং তিনি তাকে (তার) নেক বান্দাদের (কাতারে) শামিল করে নিলেন

৫১. কাফেররা যখন আল্লাহর কিতাব শােনে তখন এমনভাবে তাকায় যে, এক্ষুনি বুঝি এরা নিজেদের দৃষ্টি দিয়ে তােমাকে আছড়ে ঘায়েল করে দেবে, তারা একথাও বলে সে (কিতাবেরবাহক) একজন পাগল

৫২. অথচ (এরা জানে না,) কিতাব তাে মানবমণ্ডলীর জন্যে একটি উপদেশ বৈ কিছুই নয়!

<<Previous Surah>>      << Home Page>>        <<Next Surah>>

*Inspired by the book of Abdullah Yusuf Ali
Post a Comment (0)
Previous Post Next Post